নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের দারোগাপুকুর পাড় এলাকায় এক প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ মেলামেশার সময় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান কামাল হোসেনকে আটক করে স্থানীয়রা। এ সময় ক্ষিপ্ত হয়ে কামাল এলোপাথাড়ি গুলি করলে ২ জন গুলিবিদ্ধ হন। সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টায় এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, কুতুবপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান কামাল হোসেনের সঙ্গে ওই এলাকার ব্যবসায়ী সাত্তার মিয়ার মেজ ছেলের পুত্র সুন্দরীপুত্র বধুর সঙ্গে দীর্ঘদিন থেকে কামালের অবৈধ সম্পর্ক চলছিল। সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে চুপিসারে কামাল ওই গৃহবধুর ঘরে প্রবেশ করলে স্থানীয়রা টের পেয়ে ঘরের বাইরে তালা লাগিয়ে দেয়।
খবরটি দ্রুত এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে শত শত মানুষ সেই বাড়িতে জড়ো হয়। খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কামাল ঘরের ভেতর থেকে এলোপাথাড়ি গুলি করলে বাইরে থাকা পাশের বাড়ির আবুল কালাম ও মিজান গুলিবিদ্ধ হয়। তাদের নোয়াখালী প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তালা ভেঙ্গে কামালকে আটক করে থানায় নিতে চাইলে জনতা উত্তেজিত হয়ে কামালকে গণপিটুনি দেওয়ার চেষ্টা করে। বর্তমানে কামাল বেগমগঞ্জ মডেল থানায় আটক রয়েছেন।
এদিকে গুলিবিদ্ধ আবুল কালামের অবস্থা আশঙ্কাজন বলে জানা গেছে। তাকে ডাক্তাররা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন। তার বুকের ডান পাশে গুলি লেগেছে। তবে যে অস্ত্র দিয়ে কামাল গুলি চালিয়েছে পুলিশ তা উদ্ধার করতে পারেনি।
কামালকে উদ্ধারকারী বেগমগঞ্জ মডেল থানার এস.আই মধুসুদন জানান, আমরা মোবাইল ডিউটিতে ছিলাম। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে উত্তেজিত জনতার হাত থেকে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসি। তবে ওই বাড়ির এক প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে তার সম্পর্কের কথা স্থানীরা আমাদের জানিয়েছে।
বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি সাজিদুর রহমানের সাথে আলাপ করলে তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, কামালকে উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। তিনি বর্তমানে পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন।
এ ব্যাপারে নোয়াখালী পুলিশ সুপার ইলিয়াছ শরিফ জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মামলা হলেই তাকে আদালতে পাঠানো হবে।
উল্লেখ্য, আটক কামালের বিরুদ্ধে এলাকায় সন্ত্রাস, মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে।
bd24live

News Page Below Ad