৫ই জানুয়ারিকে কয়েকটা দিক থেকে বিশ্লেষণ করা যায়। প্রথম কথা হচ্ছে এই ৫ই জানুয়ারিতে একটা নির্বাচন হয়েছিল এবং সেটা ছিল একটা বড় ধরণের প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন। সাধারণ মানুষ এই নির্বাচনে ভোট দেয়নি আর বিএনপি এই নির্বাচনকে প্রতিহত করতে চেয়েছিল। এই নির্বাচন প্রতিহত করাকে কেন্দ্র করে বড় ধরণের একটা সহিংসতাও হয়েছিল আর তাতে অনেক মানুষ মারা গিয়েছিল। এই সহিংসতা দমন করার জন্য সরকারের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতেও অনেক মানুষ মারা গিয়েছিল। সব কিছু মিলিয়ে বলা যায়, আসলে ৫ই জানুয়ারি আমাদের জীবনে কোন আনন্দের বার্তা বয়ে আনে না।
বুধবার রাতে চ্যানেল আই-এর আজকের সংবাদপত্র অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেন সাপ্তাহিক ২০০০ এর সম্পাদক গোলাম মোর্তোজা।
তিনি আরো বলেন, ৫ই জানুয়ারি আমাদেরকে এক ধরণের শঙ্কার মধ্যে ফেলে দেয়। কারণ ৫ই জানুয়ারির নির্বাচনে সাধারণ মানুষ তার ভোটাধিকার হারিয়েছে। আর ৫ই জানুয়ারির নির্বাচন প্রতিহত করার জন্য যে সহিংসতা চালানো হয়েছে সেটাও নজিরবিহীন। এই দিনে নির্বাচন হয়েছে আজ থেকে তিন বছর আগে কিন্তু প্রতি বছর যখন এই দিনটি আসে তখন বিশেষ করে নগরবাসিরা এক ধরণের আতঙ্কের মধ্যে পড়ে যান। এক দল গণতন্ত্রের হত্যা দিবস পালন করতে চায় আর এক দল গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করতে চায়। এই দিনটি কোনভাবেই গণতন্ত্রের বিজয় দিবস নয়। কেননা গণতন্ত্রের বিজয়ের মত কোন কিছুই ৫ই জানুয়ারির দিন ঘটেনি।

গোলাম মোর্তোজা আরো বলেন, ৫ই জানুয়ারির নির্বাচনকে যদিও বলা হয় সংবিধান রক্ষার নির্বাচন। কিন্তু সেই সময়ের আওয়ামী লীগ যে কথা দিয়েছিল তা তারা পূর্ণ করেনি। যেমন তারা বলেছিল, পরে আরো একটা নির্বাচন দেবে। কিন্তু তারা আর সেদিকে হাঁটেনি। তবে কথা একটাই, যদি আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করে তাহলে সাধারণ মানুষকে ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিক এবং এমন একটি ব্যবস্থা করুক যাতে করে সাধারণ মানুষ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে। তাহলেই প্রকৃত গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করা মানাবে।bdnatun

News Page Below Ad